বগুড়া শিবগঞ্জ উপজেলা

বগুড়া শিবগঞ্জ উপজেলা পরিচিতি

বগুড়া জেলার শিবগঞ্জ উপজেলা একটি প্রাচীন ও ঐতিহাসিক উপজেলা। শিবগঞ্জ উপজেলা বাংলাদেশের, রাজশাহী বিভাগে, বগুড়া জেলার সবচেয়ে বড় উপজেলা। এ উপজেলার নামকরণ হয়েছে শিবমন্দিরকে কেন্দ্র করে গড়ে ওঠা বন্দর-গঞ্জের নামানুসারে। প্রাচীন পুন্ড্র জনপদের রাজধানী ছিল পুন্ড্রনগর, যা এই শিবগঞ্জ উপজেলাতেই  অবস্থিত। ১৯৮৩ সালে এই উপজেলাটি প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল। এর প্রশাসনিক কেন্দ্র হল শিবগঞ্জ শহর, যা শহরের নামের ভিত্তিতে নামকরণ করা হয়েছে। 

এটি আয়তনের দিক দিয়ে বগুড়া জেলার বৃহত্তম উপজেলা।  শিবগঞ্জ উপজেলার আয়তন প্রায় ৩১৫ বর্গ কিঃমি। এ উপজেলার উত্তর দিকে গাইবান্ধা জেলার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা, দক্ষিণ দিকে বগুড়া সদর উপজেলা, কাহালু ও দুপচাঁচিয়া উপজেলা, পূর্ব দিকে সোনাতলা ও গাবতলী উপজেলা, পশ্চিম দিকে জয়পুরহাট জেলার কালাই ও ক্ষেতলাল উপজেলা।

শিবগঞ্জ উপজেলার জনসংখ্যা প্রায় ৪ লক্ষ। এ উপজেলার প্রধান নদীগুলি হল করতোয়া, নাগর ও গাংনাই।

শিবগঞ্জ উপজেলার অর্থনীতি মূলত কৃষি নির্ভর। এ উপজেলার প্রধান ফসলগুলি হল ধান, গম, পাট, আলু, সরিষা, মটরশুঁটি ইত্যাদি। এছাড়াও এ উপজেলায় চা শিল্প, মৎস্য চাষ ও কুটির শিল্পেরও কিছু বিকাশ ঘটেছে।

শিবগঞ্জ উপজেলার শিক্ষার হার প্রায় ৬৫%। এ উপজেলায় একটি সরকারি কলেজ, একটি সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়, ১২টি বেসরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়, ২৭টি মাদ্রাসা, ১৫৭টি প্রাথমিক বিদ্যালয় রয়েছে।

শিবগঞ্জ উপজেলার স্বাস্থ্যসেবা ব্যবস্থা কিছুটা উন্নতির দিকে। এ উপজেলায় একটি সরকারি হাসপাতাল, একটি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স, ১৩টি কমিউনিটি ক্লিনিক রয়েছে।

ভৌগলিক পরিচিতি

এটি বগুড়া জেলা শহর হতে উত্তর-পশ্চিমে অবস্থিত। এর মোট আয়তন প্রায় ৩১৫.৩৩ বর্গ কিলোমিটার। এই জেলার উত্তরে গাইবান্ধা জেলা, দক্ষিণে বগুড়া সদর উপজেলা এবং কাহালু উপজেলা, দুপচাঁচিয়া উপজেলা এবং পূর্বে সোনাতলা উপজেলা এবং গাবতলী উপজেলা, এবং পশ্চিমে কালাই উপজেলা ও ক্ষেতলাল উপজেলা অবস্থিত। বগুড়া জেলা শহর থেকে ১৯ কিলোমিটার উত্তরে গাংনই নদীর তীরে অবস্থিত, তবে শিবগঞ্জ মূলত করতোয়া নদীর তীরে অবস্থিত।

শিবগঞ্জ উপজেলার পটভূমিঃ

শিবগঞ্জ উপজেলার নামকরণ:

প্রচলিত মন্তব্য রয়েছে যে, শিবগঞ্জ উপজেলা হিন্দু অধীনস্ত এলাকা। পূর্বে এই অঞ্চলে অসংখ্য শিবমন্দির ছিল, যেখানে হিন্দুদের বিভিন্ন পূজা উৎসব অনুষ্ঠিত হত। শিবমন্দিরগুলির কেন্দ্র থেকে এই অঞ্চলে বন্দরগঞ্জ নামক একটি শহর উত্থান করে। এই কারণে এই উপজেলার নাম শিবগঞ্জ হয়েছে।

উপজেলার ভৌগোলিক অবস্থান:

শিবগঞ্জ উপজেলা বগুড়া জেলার ১২টি উপজেলার মধ্যে একটি, যা অত্যন্ত বৃহত্তরে অবস্থিত। এর আয়তন ৩১৫ কিলোমিটার। বগুড়া জেলা শহর হতে ১৯ কিলোমিটার উত্তরে গাংনই নদীর তীরে অবস্থিত। এই উপজেলার উত্তরে গাইবান্ধা জেলা, দক্ষিণে বগুড়া সদর, কাহালু, ও দুপচাঁচিয়া উপজেলা, পূর্বে সোনাতলা ও গাবতলি উপজেলা, এবং পশ্চিমে কালাই ও ক্ষেতলাল উপজেলা।

বর্তমান উপজেলার ইতিহাস:

বাংলাদেশের প্রাচীন ঐতিহাসিক পুরাকীর্তির কথা যা মিলে থাকে, সেখানে বগুড়ার অবস্থান অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ এবং প্রতিবাদী। এই অঞ্চলে আড়াই হাজার বছরের পুরানো একটি সভ্যতা ছিল, যার নাম ছিল পুন্ড্রবর্ধন। বর্তমানে বৃহত্তর রাজশাহী, বগুড়া, দিনাজপুর, রংপুর এই চারটি জেলার সাথে গঠিত প্রাচীন পুন্ড্র নগর এর রাজধানী ছিল পুন্ড্রনগর, যার বর্তমানের নাম মহাস্থানগড়। মৌর্য এবং গুপ্ত যুগেও পুন্ড্রনগর ছিল মৌর্য এবং গুপ্ত শাসিত বাংলার রাজধানী।

খ্রিষ্টপূর্ব ৩য় শতাব্দী থেকে খ্রিষ্টাব্দ ১৫ শতাব্দীর মধ্যে এই নগরটি একটি সমৃদ্ধ শহরে পরিণত হয়েছিল। বেশ কয়েক শতাব্দী ধরে এই স্থানটি মৌর্য, গুপ্ত, পাল, সেন এবং

 অন্যান্য হিন্দু সামন্ত রাজাদের প্রশাসনিক কেন্দ্র ছিল। পরবর্তীতে এ নগর হতেই ইসলামের প্রচার আরম্ভ হয়। দ্বাদশ শতাব্দীর প্রথম অর্ধেকে হযরত শাহসুলতান বলখি মাহিসওয়ার ( রহঃ ) পুন্ড্রবর্ধনের রাজা পরশুরামকে পরাস্ত করে এ অঞ্চলে ইসলামের নিশান স্থাপন করেন।

বগুড়া শিবগঞ্জ উপজেলার ইউনিয়ন সমূহ

১। ময়দানহাটা     ( http://moidanhattaup.bogra.gov.bd/ )

২। কিচক          ( http://kichokup.bogra.gov.bd/ )

৩। আটমূল        ( http://atmulup.bogra.gov.bd/ )

৪। পিরব           ( http://pirobup.bogra.gov.bd/ )     

৫। মাঝিহট্ট        ( http://majhihattaup.bogra.gov.bd/ )

৬। বুড়িগঞ্জ        ( http://buriganjup.bogra.gov.bd/ )

৭। বিহার          (http://biharup.bogra.gov.bd/ )

৮। শিবগঞ্জ        ( http://shibganjup.bogra.gov.bd/ )

৯। দেউলি         ( http://deulyup.bogra.gov.bd/ )

১০। সৈয়দপুর     ( http://sayedpurup.bogra.gov.bd/ )

১১। মোকামতলা  ( http://mokamtalaup.bogra.gov.bd/ )

১২। রায়নগর      ( http://raynagarup.bogra.gov.bd/

শিবগঞ্জ উপজেলার মানচিত্র

শিবগঞ্জ উপজেলা ম্যাপ
শিবগঞ্জ উপজেলা ম্যাপ

 

উপজেলা নির্বাহী অফিসার শিবগঞ্জ বগুড়া

Tahmina Akhter

Upazila Nirbahi Officer, Shibganj, Bogra. (December-2023)

Mobile : 01733335435

Phone (Office) : 0503369001

Email : unoshibganjbogra@mopa.gov.bd

Fax : 0503369006

Batch (BCS) : 34

Joining Date : 28 September 2017

উপজেলা চেয়ারম্যান, শিবগঞ্জ উপজেলা পরিষদ, বগুড়া

উপজেলা চেয়ারম্যান

জনপ্রতিনিধি -সৈয়দ নজরুল ইসলাম,

মোবাইল : ০১৭১৩-৭২২২৮১

ফোন (অফিস) : ০১৭১৩-৭২২২৮১

ই-মেইল : uzc.shibganj@gmail.com

বগুড়া শিবগঞ্জ থানার ওসির নাম্বার

শিবগঞ্জ থানা

  • অফিসার ইনচার্জ ০১৭১৩-৩৭৪০৬২ ocshibgongbogra@police.gov.bd.
  • ইন্সপেক্টর (তদন্ত) ০১৭৬৯-৬৯৩৩২৫ ocshibgongbogra@police.gov.bd.
  • ইনচার্জ, মোকামতলা পুলিশ তদন্ত কেন্দ্র, শিবগঞ্জ থানা ০১৭৬৯-৬৯৩৩৪১
  • ডিউটি অফিসার ০১৭৬৫-৯৩০৯৩৮, ০১৭৪১-০৯৮৭০২ ০৫০৩৩-৬৯০০৯ …
  • পুলিশ পরিদর্শক, অপারেশন্স এন্ড কমিউনিটি পুলিশিং ০১৭৬৯৬৯৩৩২৬

উপজেলার ঐতিহ্য

১.। আড়াই হাজার বছরের প্রাচীন ইতিহাস 

২। কোটকটি 

৩। মাংস ও আলুর ঘাটি 

৪। সামাজিক সম্প্রীতি 

৫। সকল ধর্মের শান্তিপূর্ণ সহবস্থান 

শিবগঞ্জ উপজেলার ভূ-প্রকৃতি ও ভৌগলিক অবস্থান

শিবগঞ্জ উপজেলার ভূ-প্রকৃতি ও ভৌগলিক অবস্থান এই উপজেলার মানুষের ভাষা ও সংস্কৃতি গঠনে ভূমিকা রেখেছে।

বাংলা সাহিত্যের আদি নিদর্শন ‘চর্যাপদ’ থেকে শুরু করে বর্তমান কালঅবধি সাহিত্যের বিস্তৃত ভূ-ভাগ জুড়ে প্রতিনিয়তই যে-সৃষ্টির উন্মাদনা লক্ষ্য করে আসছি, তাকে একটি ধারাবাহিক সৃষ্টির ইতিহাস ছাড়া অন্য কোনওভাবে অভিহিত করা যায় না।

সাহিত্যের বিভিন্ন শাখা অর্থাৎ গল্প, কবিতা, উপন্যাস, নাটক, প্রবন্ধ এগুলো যে-বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন লেখকের অন্তহীন প্রচেষ্টার এক একটি সাক্ষ্য, এক একটি অনবদ্য সৃষ্টি, তা ভুললে চলে না।

এই এলাকার ইতিহাস পর্যালোচনায় দেখা যায় যে শিবগঞ্জ সভ্যতা বহুপ্রাচীন। এই এলাকায় প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শন ও বৌদ্ধ বিহারের ধ্বংসাবশেষ প্রাচীন সভ্যতার বাহক হিসেবে দেদীপ্যমান।

এছাড়াও এ এলাকায় কিছু ক্ষুদ্র জাতিসত্বা বসবাস করে যাদের নিজস্ব ভাষা ও সংস্কৃতি রয়েছে। সাংস্কৃতিক পরিমন্ডলে শিবগঞ্জের অবদানও অনস্বীকার্য।

যেসব সরকারী সংস্কৃতি বিষয়ক সংস্থা শিবগঞ্জয় কাজ করছে সেগুলো হলোঃ

* উপজেলা শিল্পকলা একাডেমী, শিবগঞ্জ।
* বাংলাদেশ শিশু একাডেমী, শিবগঞ্জ উপজেলা শাখা।
* শিবগঞ্জ জনকল্যাণ পাবলিক লাইব্রেরী।

* উপজেলা পরিষদ অডিটোরিয়াম হল, শিবগঞ্জ, বগুড়া।
* প্রভৃতি।

খেলাধুলা ও বিনোদন

খেলাধুলায় শিবগঞ্জ উপজেলা অত্যান্ত অগ্রসরমান। গ্রামীন ঐতিহ্যবাহী খেলাগুলি যেমন- হাডুডু, কাবাডি, দারিয়াবান্দা, গোল্লাছুট, লুকাচুরি, লাটিম খেলা, ঘুড়ি উড়ানো খেলা এখনো গ্রাম অঞ্জলে প্রচলিত আছে। এছাড়া, আধুনিক খেলা গুলোর মধ্যে ফুটবল, ক্রিকেট, ব্যাডমিন্টন, ভলিবল, প্রভৃতি অত্যান্ত জনপ্রিয় হয়ে আছে।

এছাড়াও বিভিন্ন সরকারী দিবসগুলিতে ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

প্রতি বছর এ মাঠ গুলোতে নিম্নলিখিত প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়ঃ

(ক) গোল্ডকাপ ফুটবল ও ক্রিকেট টুর্নামেন্ট।

(খ) প্রিমিয়ার ফুটবল লীগ ও ক্রিকেট লীগ।

(গ) প্রতি বৎসর ভলিবল লীগ অনুষ্ঠিত হয়।

(ঘ) ব্যাডমিন্টন লীগ।

শিশু বিনোদনের জন্য রয়েছে পৌর উদ্যান (শিশু পার্ক)।

আমি যদি ঢাকা থেকে বগুড়া শিবগঞ্জ এ যেতে চাই তাহলে কিভাবে যাব?

ঢাকা থেকে বগুড়া শিবগঞ্জ যাওয়ার দুটি উপায় রয়েছে:

  • সড়কপথে: ঢাকা থেকে বগুড়া শিবগঞ্জ যাওয়ার সবচেয়ে সহজ ও জনপ্রিয় উপায় হল সড়কপথে। ঢাকার শ্যামলী, কল্যাণপুর, আসাদগেট, গাবতলি, চন্দ্রা(গাজিপুর) থেকে প্রতিদিন সরাসরি বাস চেয়ার কোচ সার্ভিস রয়েছে। বাসের ভাড়া ৪০০-৬০০ টাকা। বাসের যাত্রার সময় প্রায় ৪-৫ ঘন্টা।

  • রেলপথে: ঢাকা থেকে বগুড়া শিবগঞ্জ যাওয়ার দ্বিতীয় উপায় হল রেলপথে। ঢাকা কমলাপুর রেল স্টেশন থেকে আন্তনগর ট্রেন রয়েছে। ট্রেনের ভাড়া ২৫০-৩৫০ টাকা। ট্রেনের যাত্রার সময় প্রায় ৬-৭ ঘন্টা।

আপনার সুবিধা ও চাহিদার উপর নির্ভর করে আপনি যেকোনো উপায়ে বগুড়া শিবগঞ্জ যেতে পারেন।

সড়কপথে যাওয়ার পদ্ধতি:

  • ঢাকার যেকোনো বাস কাউন্টার থেকে বগুড়া শিবগঞ্জগামী বাসের টিকিট কিনুন।
  • বাস ছাড়ে সকাল ৬:০০ টা থেকে রাত ১১:০০ টা পর্যন্ত।
  • বাসের যাত্রার সময় প্রায় ৪-৫ ঘন্টা।
  • বাসটি বগুড়া শহরের বাস স্ট্যান্ডে পৌঁছায়।
  • বগুড়া শহর থেকে শিবগঞ্জ উপজেলায় যেতে সিএনজি অথবা অটোরিকশায় যেতে পারেন।

রেলপথে যাওয়ার পদ্ধতি:

  • ঢাকা কমলাপুর রেল স্টেশনে গিয়ে বগুড়াগামী ট্রেনের টিকিট কিনুন।
  • ট্রেন ছাড়ে সকাল ৬:০০ টা থেকে রাত ১১:০০ টা পর্যন্ত।
  • ট্রেনের যাত্রার সময় প্রায় ৬-৭ ঘন্টা।
  • ট্রেনটি বগুড়া রেল স্টেশনে পৌঁছায়।
  • বগুড়া রেল স্টেশন থেকে শিবগঞ্জ উপজেলায় যেতে সিএনজি অথবা অটোরিকশায় যেতে পারেন।

আপনার ভ্রমণ শুভ হোক!

পরিশেষে

প্রবন্ধের সমাপনে, শিবগঞ্জ উপজেলা, বগুড়া একটি অদ্ভুত এবং ঐতিহাসিক স্থান হিসেবে অমর ধারায় উঠতে চলেছে। এই প্রাচীন এলাকার রূপরেখা এবং ঐতিহাসিক পৌরাণিক ঘটনার পুনরাবৃত্তির মাধ্যমে শিবগঞ্জ উপজেলার মানুষের আত্মগর্ব এবং ঐতিহাসিক চেতনা উন্নত হচ্ছে। এখানে প্রাচীন মন্দির, ঐতিহাসিক জমিদার বাড়ি, এবং সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠানের অধ্যয়ন করে আসা যাচ্ছে, যা এই স্থানের ঐতিহাসিক গৌরব এবং ধারাবাহিকতা তৈরি করে তোলছে। শিবগঞ্জ উপজেলা, বগুড়া একটি ব্যক্তিত্বপূর্ণ এবং সানাতনিক সম্প্রদায়ের সাথে প্রাচীন ঐতিহাসিক পার্থিবতা বজায় রেখে যাচ্ছে, এবং এই অদ্ভুত উপজেলা বাংলার ঐতিহাসিক ও সাংস্কৃতিক ধারার এক অমূল্য অংশ হিসেবে অবদান রেখেছে।

আরও পড়ুনঃ

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *